রাজকন্যার প্ৰেম

রাত্রি তখন প্রায় দুই প্রহর ! মেঘের আড়ালে মুখ লুকিয়েছে চাঁদ ! হারেম থেকে ছদ্মবেশে বেরিয়ে বন্দীশালায় প্রবেশ করলো ঔরংজেব কন্যা জেবুন্নিসা ! ঔরংজেবের নির্দেশে এখানেই বন্দী তার প্রেমিক দারাপুত্র সুলেমান !

“কয়েদি নম্বর ৭২০ “! কারাগাররক্ষী ভীমের কণ্ঠস্বর শুনে বাইরে তাকালো সুলেমান ! বাহ্যজ্ঞানশূন্য , ঘোলাটে দৃষ্টি, যন্ত্রণাক্লিষ্ট মুখ , অর্ধনগ্ন শরীরে চাবুকের দাগ স্পষ্ট ! স্তব্ধ হয়ে তাকিয়ে রইলো জেবুন্নিসা ! বুক জুড়ে অনন্ত অশ্রুর প্লাবন !

হঠাৎ অন্ধকার বিদীর্ণ করে ডেকে উঠলো রাতজাগা পাখি ! এই পাখির ডাক যে বিপদের সংকেতবার্তা সেকথা জানতো জেবুন্নিসা ! দ্রুতপদে কারাগার থেকে নিষ্ক্রান্ত হলো সে !

রাত শেষ হতে এখনো অনেক বাকি !
গুপ্তপথ ধরে প্রাসাদ অভিমুখে হেঁটে চলেছে জেবুন্নিসা , যেন কোনো ঠিকানাহীন ন আশ্রয়ের দিকে এগিয়ে চলেছে ! অশ্রুসিক্ত মুখ ওড়নায় ঢাকা ! পেছনে অন্ধকার , বায়ুশূন্য কুঠুরিতে মৃত্যুর প্রতীক্ষায় প্রহর গুনছে রিক্ত, নিঃস্ব , সর্বহারা এক রাজপুত্র ! মুখে ভাষা নেই , চোখে জল নেই ! দমকা বাতাসে ওড়না সরে যায় মুহূর্তের জন্য ! মেঘের আড়াল থেকে একফালি চাঁদ নীরবে তাকিয়ে থাকে জলে ভেজা , ভ্রমরকালো দুচোখের দিকে !