ছোটদের জন্য 

মা

ছোটদের জন্য কৌশিক দাস

মাথার উপর রোদ্দুর আর
চক্রাকারে চিল ,
গ্রামের কোণে শুকিয়ে এলো
আড়িয়ালের বিল ।
দুই ভায়েতে গুগলি কুড়োয়
এক্কেবারে ভিজে ,
পেটের ভিতর আগুন জ্বলে
পাচ্ছে খিদে কি যে !

কিন্তু তাদের খিদের কথা
বলবে তারা কাকে ?
সেই কবেকার বোশেখ মাসে
হারিয়েছিল মা কে !

খিদে পেলে তাইতো ওরা
তাকিয়ে থাকে দূরে…
ধোঁয়া ধোঁয়া ওই দেখা যায়
পিচগলা রোদ্দুরে ।
ওইখানে মা কুটনো কোটে,
উনুন ধরায় ওই ;
গরম গরম ভাত রেঁধে দেয় ,
বিন্নি ধানের খই।

-‘ সকাল থেকে খাসনি কিছু ,
দৌড়ে এসে খা… ‘

দেখতে দেখতে খিদে উধাও..

ম্যাজিক জানে মা!


পাবলো এবং চাঁদের বুড়ি

এক যে আছে চাঁদের বুড়ি ,
চাঁদের দেশে থাকে ।
রোজ সকালে ঝাঁট দিয়ে দেয়
চাঁদের উঠোন টাকে ।

তাই তো রাতে অমন দেখো –
চাঁদের আলো সাদা !
সবটা জানে ঠাম্মা আর
সবটা জানে দাদা ।

চাঁদের দেশে শুধুই হাসি ,
কান্নাই নেই কোনো !
একটি কথা চুপি চুপি
বলছি তোমায় শোনো –

চাঁদের দেশে চরকা বুড়ি ,
জানোই তো সে একা !
এক যে ছিল মামদো ভুত
হঠাৎ দিলো দেখা !

যেই না দেখা! ওমনি বুড়ি
কাঁপছে ভয়ে থরো !
বললো ডেকে,” ও দাদুভাই
পাবলো আমায় ধরো ।”

পাবলো তখন ভীষণ রেগে ,
ঢাল – তরোয়াল নিয়ে ,
বাঁচিয়ে দিল ঠাম্মা টাকে
চাঁদের দেশে গিয়ে ।

তখন থেকে চাঁদের দেশে
সবাই খুশী ভাবো……
সবাই ভাবে পাবলো আছে
ভয় কেন বা পাবো ?

তোমরা ভাবো কে সে ছেলে?
কোথায় বা সে থাকে ?
ঠাম্মা যখন রাস্তা পেরোয়
পাবলো পাশেই থাকে ।