আজ আমরা এমন এক ভয়াবহ পরিস্থিতির মাঝে দাঁড়িয়ে আছি যা থেকে রক্ষা পাওয়া খুব কঠিন। এই মৃত্যুর মহামিছিলের অংশ হওয়া থেকে পৃথিবীর অগ্রগণ্য দেশগুলি পর্যন্ত নিজেদের বাঁচাতে অক্ষম। এখন এমন এক বন্ধ্যা সময়ে ডারউইনের struggle for existence এর মতো একপ্রকার স্ট্রাগল ই করতে হচ্ছে। এই মারণ ব্যাধি থেকে একমাত্র বাঁচার উপায় হল নিজেকে ঘরবন্দী করে নেওয়া। আর এই ঘরবন্দী অবস্থায় সবচেয়ে কঠিন কাজ হল সময় কাটানো। সময় যেন মানুষের কাটতেই চায়না। আর সেজন্যই techtouchtalk এর দল খুঁজে এনেছে এমন কিছু সিনেমা ও ওয়েব সিরিজ যা আপনাকে এই একঘেয়ে যুদ্ধে জয়লাভ করতে সাহায্য করবে। নিচে দেওয়া লিস্টে সিনেমা ও ওয়েব সিরিজের নামের সাথে সেগুলি কোন প্লাটফর্মে উপলব্ধ আছে তাও দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আশা করি আপনাদের সময় ভাল কাটবে। সুস্থ থাকুন, সতর্ক থাকুন।

CINEMA

1. CONTAGION – AMAZON PRIME
বর্তমান সময়ে সবচয়ে প্রাসঙ্গিক সিনেমা হল ২০১২ সালের কন্টাগিয়ন। লক ডাউন কাকে বলে, তার কি যন্ত্রণা, এরকম রোগের প্রভাব কতটা হতে পারে, তার ভয়াবহ রূপ এই সিনেমাটি একবার দেখলেই বোঝা যাবে।
2. DWITIYO PURUSH – HOICHOI
বাংলা সিনেমার ইতিহাসে সৃজিত মুখার্জি এসে একটা যুগান্তকারী পরিবর্তন তো করেছেন। আর তার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য সিনেমা হল ২২শে শ্রাবণ। এমন সিনেমাপ্রেমী খুঁজে পাওয়া কঠিন যে এই সিনেমাটি দেখেনি। ৯ বছর পর তারই সিক্যুয়েল করে আবারও সাড়া জাগিয়েছে সৃজিত বাবু এই সিনেমার মাধ্যমে। তবে ভাষার জন্য এটা কেবলমাত্র বয়স্কদের জন্যই। ছোটদের থেকে একটু আড়াল করেই দেখতে হবে।
3. PARASITE – AMAZON PRIME
২০১৯ সালের আমার সবচেয়ে প্রিয় সিনেমা। দক্ষিণ কোরিয়া দেশের পরিচালক বং জন হু পরিচালিত এই সিনেমাটি আসলে বর্তমান সমাজ, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষমতা কে প্রশ্ন করে। ৪টি অস্কার পর্যন্ত নিজের ঝুলিতে করেছে এই সিনেমাটি।
4. TUMBADD – AMAZON PRIME
সম্প্রতি সময়ে সবচয়ে প্রিয় ভারতীয় সিনেমা। ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে কোন পৌরাণিক ভূতের সিনেমা আগে তৈরি হয়েছে বলে আমার মনে পড়ে না। কি একাগ্রতা নিয়ে এই সিনেমাটি তৈরি করেছেন পরিচালক তা না দেখলে বোঝা যাবে না।
5. KONTTHO – HOICHOI
বাংলা সিনেমা জগতে সবচেয়ে প্রিয় জুটি হল শিবপ্রসাদ ও নন্দিতা জুটি। এই জুটি প্রতিবার একটা পরিষ্কার নির্মল সিনেমা করে দর্শকদের মনে নিজের জন্য জায়গা করে নিয়েছেন। আর এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। তাই, সপরিবার এই সিনেমাটি দেখতেই হয়
6. PHOTOGRAPH – AMAZON PRIME
এই সিনেমার সবচাইতে বড় কারন হল অভিনেতা নাওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকী। এই সিনেমাটি দেখতে দেখতে বারবার মনে হয়েছে যেন পুরনো হারিয়ে যাওয়া শৈশবে ফিরে যাচ্ছি।
7. GHOST STORIES – NETFLIX
৪ জন প্রিয় পরিচালকের ৪ টা ভূতের হাড় হিম করা গল্প। যোয়া আখতার, অনুরাগ কাশ্যপ, দিবাকর ব্যানার্জি এবং কারন জোহর।
8. RATSASAN – YOU TUBE
যারা থ্রিলার ব্যাপারটা ভালোবাসেন তাদের জন্য এই সিনেমাটি দিলাম। আমার এক প্রিয় বান্ধবীর বলা তে সিনেমাটি দেখেছিলাম এবং সত্যিই সিনেমাটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দর্শকদের বসিয়ে রাখার ক্ষমতা রাখে।
9. ROKTOKOROBI – NETFLIX
প্রথম বাংলা সিনেমা অস্কারের জন্য সেরা সিনেমার রেসে ছিল। রবীন্দ্রনাথের রক্তকরবী নাটককে বর্তমান রাজনৈতিক ও সামাজিক প্রেক্ষাপটে তুলে ধরেছেন পরিচালক অমিতাভ ভট্টাচার্য।
10. JOKER
জোকার এমনিতেই সিনেমাপ্রেমীদের কাছে অত্যন্ত প্রিয় চরিত্র। আর এবারে একেবারে গোটা একটা সিনেমা পুরোটাই জোকার এর জীবনকে কেন্দ্র করে। আর এতদিনের সেরা জোকারের অভিনয় করে দিয়েছেন অভিনেতা জাকুইলাইন ফয়েনিকস।
11. Trapped – AMAZONE PRIME
সম্পূর্ণ সিনেমায় আছে একজন অভিনেতা ও একটা ছোট্ট ঘর। ব্যাস। আর কিছুই নেই। পরিচালক বিক্রমাদিত্যের এই সাহসী সিনেমা সত্যিই যতবার দেখি মন ভরে যায় প্রতিবার। একটা ঘরে কোনভাবে বন্দী হতে যান অভিনেতা রাজকুমার রাও। আর তারপর সেই ফ্ল্যাট ঘর থেকে বেরোবেন তা নিয়েই পুরো সিনেমা।
12. 1917 – YOU TUBE
আমার কাছে এই সিনেমাটি অনেকটা ম্যাজিক এর মতো মনে হচ্ছে। যেন পুরো সিনেমা জুড়ে আমি নিজেই সেই অভিনেতাদের মাঝখানে ১৯১৭ সালের যুদ্ধের মাঠে উপস্থিত আছি। Continuos shot দিয়ে নির্মিত একটা সম্পূর্ণ ছবি। যেন সময়ের প্রবাহে বয়ে যাচ্ছি অজান্তেই।
13. Article 15 – NETFLEX
নতুন করে আর কি বলব। আগেও এই সিনেমার ব্যাপারে একটা আর্টিকেল লিখেছি। যেমন ঝা চকচকে পরিচালনা, তেমনই পটু অভিনয়, তেমনই ধারালো গল্প।

Web Series

1. MONEY HEIST – NETFLIX
দশকে কিম্বা শতকে হয়ত এমন কোন সিনেমা উল্কার মতো আসে যা সারা দুনিয়ার দর্শককে এক সুতোয় বেঁধে দিতে পারে। আগেও এরকম কতগুলো উদাহরণ আমরা পেয়েছি যখন ডার্ক নাইট বা ভি ফর ভেন্দাটা এর মতো সিনেমা সারা পৃথিবী ব্যাপী আলোড়ন ফেলে দিয়েছিল। আর ঠিক একইরকম হচ্ছে এবারেও। স্প্যানিশ ভাষায় নির্মিত এই সিরিজ ও তার একটি গান “বেলা চাও” এর নেশায় হয়ত এখন সবাই মত্ত। শুধুমাত্র পাবলিক ডিমান্ড এর জন্য মাত্র ৩ বছরে ৪ টে session তৈরি করতে হল।
2. SPECIAL OPS – HOTSTAR
২০০১ এ পার্লামেন্টে যে জঙ্গি হামলা হয় তাকে কেন্দ্র করে এই সিরিজ শুরু হয় এবং সারা পৃথিবী ব্যাপী আমাদের দেশের বিভিন্ন গোয়েন্দা বিভাগের কাজের ব্যাপ্তি, তাদের পরিশ্রম জীবন ঝুঁকি নিয়ে কাজ করার উচ্ছাস মূলত এই রোমাঞ্চকর সিরিজে দেখানো হয়েছে।
3. ASUR – VOOT
২০২০ এর এখনও পর্যন্ত সবচয়ে ভালো লাগার সিরিজ হল অসুর। দেবতা কে আর অসুর কে, তারা কি এক নাকি আলাদা। এসব প্রশ্নের উত্তর এই সিরিজে এক অদ্ভুত গল্পের মাধ্যমে উপস্থাপনা করেছে। খুব সুন্দর ও নিখুঁতভাবে পৌরাণিক, সামাজিক ও বর্তমান রাজনৈতিক পটভূমি মিশিয়ে শেষ পর্যন্ত রহস্যকে যে শুধুমাত্র রহস্য নয় বরং ক্লাসিক্যাল রহস্যে নিয়ে গেছে নির্মাতা তার জন্য সাধুবাদ জানতে হয়।
4. SHE – NETFLIX
এক সিনিয়র কনস্টেবল ভূমি নামের মেয়ে হঠাৎ সিবিআই বিভাগের এক বড় গুপি কাজের অংশ হয় এবং ধীরে ধীরে নিজেই তার বিছিয়ে রাখা জালে ধরা পড়তে থাকে, সাহসী কাজ। কাজের স্টাইলে বা টেকনোলজিতে খুব উচ্চ প্রশংসিত না হলেও একটা ভালো চেষ্টা বলা যেতেই পারে।
5. SHOBDO JOBDO – HOICHOI
শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একটা রহস্যে মোড়া গল্প। একটা মায়াবী বা বিভ্রম সৃষ্টি করার চেষ্টা দেখা গেছে পরিচালকের চিত্রনাট্যে। যদিও খুব ভালো না হলেও বেশ ভালো লেগেছে।
6. EKEN BABU – HOICHOI
বাংলা ও বাঙালির পছন্দের বিষয় হল গোয়েন্দা। আর এই জিনিসটাকে হাতিয়ার করেই এক নতুন ধরনের গোয়েন্দাগিরির উপাদান পেয়েছি এই সিরিজে। এই সিরিজে গোয়েন্দা একেন বাবুর চরিত্রে ফেলুদা বা ব্যোমকেশের মতো সিরিয়াসনেস নেই। গুরুগম্ভীর ভাব নেই। সদা হাসিমুখের এই অদ্ভুত প্রকৃতির মানুষটি হাসতে হাসতেই যেন সমস্ত মুশকিল আসান করে নিতে পারেন আর তাই এতো প্রিয় চরিত্র হয়ে উঠেছেন।
7. BYOMKESH – HOICHOI
ব্যোমকেশ নিয়ে নতুন করে তো কিছু বলার নেই। তবে এই সিরিজে যেটা নতুন করে পাওয়ার তা হল বর্তমান প্রজন্মের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ব্যতিক্রমী অভিনেতা অনির্বাণ কে ব্যোমকেশ রূপে পাওয়া গেছে।
8. FAMILY MAN – AMAZON PRIME
একজন সাদাসিধে পারিবারিক মানুষ। দেখে আর দশটা মানুষের মতোই। কিন্তু তার আসল পেশা দেশের গোয়েন্দা বিভাগে। নিজের পেশা সম্বন্ধে ওয়াকিবহাল করেনা সে নিজের পরিবারের কাউকে, একইসঙ্গে সংসার ও পেশা দুটোই সামলে চলেছে। একেবারে আগাগোড়া ফ্যামিলি ম্যান। খুব সুন্দর, পরিষ্কার একটা সিরিজ। দেখে মন ভোলানো যেতেই পারে।
9. Chernobyl – HOTSTAR
ইউক্রেন দেশের চেরনোবিল শহরে ১৯৮৬ সালে ঘটে যাওয়া পারমাণবিক দুর্ঘটনা যা পৃথিবীর অন্যতম সবচেয়ে ভয়াবহ ঘটনাগুলির মধ্যে অন্যতম, তাকে কেন্দ্র করেই গোটা একটা সিরিজ। এর পেছনের গল্প, অনেক অজানা রহস্য, অজানা তথ্য উঠে এসেছে ইতিমধ্যে এই সিরিজ থেকে।