পরিবেশ, বর্তমান সমাজ ও প্রাচীন ঐতিহ্যের ওপরে প্রবন্ধ, অনুগল্প, শর্ট ফিল্মের চিত্রনাট্য ও কবিতা লিখে থাকেন। কিশোর ভারতী পত্রিকা দ্বারা আয়োজিত অনুগল্প প্রতিযোগিতায় একটি অনুগল্প নির্বাচিত হয়েছে। একটি শর্ট ফিল্ম পুরস্কৃত হয়েছে।

অনুজীব

দুটো গাল ভিজে চোখের জলে
খেলনা নয় দুটো ফ্যানমাখা ভাত
সাথে যদি এক চিমটে নুন পায় তার অপেক্ষায়। আর একটু সবুর কর এই এলো তোর বাবা
ছোট্ট একটি চোখ বুজে আসে
স্তব্ধ পৃথিবীতে সেদ্ধ ভাত আর ফ্যান কত বিরল !
গত বৈশাখে দেখা হয়েছিল
কথা ছিল ওই যে আসছে ফাগুন
হৃদয়ের ঘর বাঁধবে সাক্ষী রেখে আগুন
আগুন আজ ঝরে দুটি বুকের মাঝে ,
বেঁচে থাকার লড়াই এত তাড়াতাড়ি শেষ হবে !
হৃদয়ের ঘরে আজ চাপা আর্তনাদ
সাদাকালো পৃথিবীতে রক্তের বড় আকাল
শুকিয়ে আসছে আরও দুটো তরতাজা শরীর।
তুমি তো আছো বেশ , চোখে মুখে ছুটির রেশ ।
কালো সানগ্লাসে ঢাকা চোখে দেখোনি
শত শত ভাতহীন থালা।
ভেবেছ তাদের সভ্যতার ফেলা আবর্জনা
যতই মুছে যাবে ততই মঙ্গল।
হাভাতাদের হাতে আজ তোমার হাত
অসহায় আলিঙ্গন মৃত্যুর সাথে !
তোমার বানানো যত মিথ্যে বর্ম
সব মিলিয়ে যাচ্ছে
আসছে বেরিয়ে হাড় আর চামড়া
আধপোড়া চামড়ার গন্ধে ঢেকেছে আকাশ
তবুও তুমি অন্ধ মুখে নিয়ে ধর্মান্ধতার গন্ধ
বোঝো না কেন এ যুদ্ধ আমার তোমার সবার
রক্ত মাংসের মানব শরীর আর একদিকে
এক অজানা অচেনা প্রায় অদৃশ্য অনুজীব ।