পেশাগত জীবন কয়লা, কয়লা নেড়ে ছেড়ে । কর্মস্থল কয়লা খনি, পেশা সার্ভেয়ার । প্রথমে কবিতা লেখা দিয়েই শুরু , পরে রম্যগল্প । একটি রম্য সংকলন "এক ডজন ইয়ে"।  

কৃষ্ণকলির কালোর ব্যাথা

তুমি তো সেই সৃষ্টি সুখে, মগন হয়ে কবিগুরু
নিপুণ হাতে আঁকলে বসে, আকাশ-পানে যুগল ভুরু ।
কালো মেয়ের কালো বেণী, লোটালে মোর পিঠের’পরে
ঘন মেঘের আকাশ তবু , কুটির থেকে আনলে দ্বারে ।
শ্যামল গাই শ্যামা মেয়ে, কালো মেঘের ডাকাডাকি
সেই আলোতে চিনলে তুমি, কালো মেয়ের হরিণ আঁখি ।
দক্ষ হাতের নিপুণ তুলি, আঁকলে আঁধার ঢাললে কালো
কি আর এমন হত ক্ষতি , গায়ে রঙে দিলে ফর্সা আলো ।
হয়তো আমি গেঁয়ো বলেই, আমার ভাগে কালোর ছটা
মনের খবর কেউ নিলোনা, ময়না পাড়ায় রাখলে একা ।
কাল-বোশেখী দিলে চিতে, দিলেনা পলাশ ফাগুন বেলা
কালো বুকেও জ্বলে আগুন – আকাশ হয়ে এলে মেঘলা ।
তমালবনে ছায়া কোমল হলে, কালোবুকে আষাঢ় নেমে আসে
হটাৎ খুশি কালো মেয়ের মন,গুমরে মরে শ্রাবণরজনীতে ।
আর যা বলুক অন্য লোকে, আজও তো সেই একলা কৃষকলি
কালো !তা সে হইনা যতই কালো,মন পেতে চায় প্রেমের কুসুম কলি ।।