স্বপ্নে দেখা

দিনরাত ভাবি বসে সেই মুখখানি
ঘোমটাতে ঢাকা ছিল আঁচলটা টানি।
খসে গেল ঘোমটাটা মায়াময় মুখ
ক্ষণিকের তরে দেখা পেলাম কি সুখ!
সুললিত মৃদু হাসি মধুর বচন
টোল পড়ে গালে তাঁর আয়ত লোচন।
মায়াবিনী প্রেমময় কুঞ্চিত কুন্তল
ঝলমলে রূপবতী চলে ঢলঢল।
ঠোঁটে যেন বসে ছিল প্রজাপতি কতো
হলুদে সবুজে শাড়ি শস্য ক্ষেত যতো।
সিঁথিতে সিঁদূর ছিল পলাশের লাল
আজও তা মনে পড়ে হোলো কতকাল!
কোমরের বেষ্টনীর লাল কটিবন্ধ
প্রসাধনী আতরের ছিল সে সুগন্ধ।
বাঁশির মতোন নাকে ছিল নাক ফুল
পক্ষীরাজের ঘোড়ায় চেপে ওড়ে ধুল।
স্বপ্ন দেখি রাত ধরে ঘুম ভাঙে ভোরে
মন হোলো উদাসীন,সুখের বাসরে।
স্বপ্ন ভাঙ্গে ঘোর কাটে মন নাহি মানে
বিবাগী হলাম আমি বিরহীর গানে।