বর্তমানে কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তর বাংলা বিভাগের ছাত্র।

পরিযায়ী

রাত তখন প্রায় দু’টো ,
হাঁটছি দেশ থেকে দেশান্তর,
নেই টাকা নেই কোনো ছাদ।
বহু দূর থেকে এক রশ্মি ছুটে আসছে ,
আসছে আসছে আসছে।
উৎসব নাকি হতাশার?
ঝড়ের মতো বেরিয়ে গেল ।
হটাৎ কান্নায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়লো,
ভেঙে চুরমার করে দিলো নিস্তব্ধতা।
চারিদিকে বিভীষিকার ছায়া ঘনিয়ে এলো,
আষ্টে-পিষ্ঠে বেঁধে ফেললো হাহাকার।
নাকে কেমন একখান গন্ধ ভেসে আসে,
ফিরে দেখি পরে আছে কিছু মানুষ,
আর আছে তাদের পিষে যাওয়া রক্তাক্ত দেহ,
চারিদিকে শুধু লালচে রক্ত আর রক্ত।
শুধু কি মানুষগুলোই পিষে মরলো?
নাকি আরো বড় কিছু?
পরদিন আসবে সংবাদ গোষ্ঠী,
তাদের নিয়ে লেখা হবে,
নাম থাকবে না বোধহয়।
থাকবে শুধু সূত্র অনুযায়ী,
ট্রাকের ধাক্কায় মৃত পাঁচ পরিযায়ী।