সাঁকো

নদী গোনে ঝিকিমিকি তারা, খেলা করে দুধশালি পুঁটি ।
ছেলেবেলা পুরে যারা থাকে, তারা বলে সারাবেলা ছুটি ।
দুপারে কাশের বন ছুঁয়ে, কাকতাড়ু
নেড়ে বলে মাথা ।
ধরোনা কলম কবি আজ, খুঁজে আনো
কবিতার খাতা ।
আমি কি থাকতে পারি চুপ ? হৃদয়টি
ওঠে ফের দুলে !
আমিও গানের পাখি হই, তোমাদের
মন গুলি ছুঁলে ।
একা একা নদী কথা বলে, নীরবতা
হাসে একা ভোরে ।
এই সব খেলা গুলি আমি, রেখেছি
আমার মনে ধরে ।
তোমরাতো ভালো খুব জানি, তোমরাতো
কত খুশি আঁকো ।
এপারের সুখ গুলি মেখে, পার হও
ঝুমঝুমি সাঁকো ।
এপারের প্রজাপতি গান, ওপারের
চাঁদ হয়ে নাচে ।
হীরে ফুল হাততালি দেয়, ফোটে দেশ
রূপকথা গাছে ।
অপরূপ এই সব খুশি, অভিলাষী
ডানা দুটি মেলে ……..
কবিতার মত ওড়ে বুকে, বাঁশি নাও
ও রাখাল ছেলে !