সম্পাদিকা উবাচ

পৃথিবীর শেষ প্রান্তেও জীবন আস্বাদ্য ৷ জীবনের দিকে ঝুঁকে পরা অসহ আগুন প্রশান্ত মোহমায়ার নিম-জরী বৃষ্টির ফোঁটায় কখন অজান্তে অভ্যাস হয়ে যায় ৷ ঘরের আগড় খুলে বানজারা বাতাসের দমক , মৌ ঢেলে দেয় তৃষার গালিচায় ৷ ভালোবাসায় বাঁচতে শিখতে হয়না ৷ আকাশ সঙ্গী হলে রাজনর্তকীরা মেঘের আড়াল-আবডাল থেকে পুষ্প বৃষ্টি করে ৷ ভালোবাসারা তখন বাঁচার মৌতাত ৷
কচ্ছপের পিঠের মত বনভূমির আত্মমগ্ন উল্লাস আশাবরীর সুরে বেজে চলে অনন্ত প্রকাশে ৷মুক্তির প্রতিবিম্ব একটা থেকে দুটো ,দুটো থেকে সতিনটে ছড়িয়ে যায় আসমুদ্রহিমাচল ৷ আহ্লাদী চাঁদ আবক্ষ ভরে পান করে বাষ্পীয় বৈবভ ৷ চতুষ্কোণী পৃথিবীর ,জন জলাধিপে উল্লোল ওঠে উল্লাসী স্পন্দনের ৷
পানকৌড়ির ভেজা ডানায় বিমর্ষ অসুখেরা জলজ উদ্ভিদের মত আটকে থাকে অবাঞ্ছিত আশ্রয়ে ৷ প্রত্যয়ী আকাঙ্ক্ষারা মগ্ন সাধনায় বিলোল আবেগ বেড়ে দেয় জীবনের ঘ্রাণে ৷ গোধূলির মাঠ পেরিয়ে ফাল্গুনী অনুষঙ্গ জীবনকে বাঁধে ৷ গাঢ় চিবুক বেয়ে সন্ধ্যা রাগ শালুকের বুকে পরাগ হয়ে ঝরে ৷
বসন্ত এসে গেছে ফাল্গুনী শুভেচ্ছা সকলকে৷ ভালো থাকবেন ৷

রাজশ্রী বন্দ্যোপাধ্যায়