জন্ম: ২২শে আশ্বিন ১৩৯৩ [ইংরেজি ৯ই অক্টোবর ১৯৮৬] কলকাতার নিউ আলিপুর অঞ্চলে। বাবা: শ্রী অভিজিৎ সেনগুপ্ত মা: স্বর্গীয়া কেতকী সেনগুপ্ত শিক্ষা: ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লেখালিখি শুরু ১৯৯৪ সাল থেকে। কচিকাঁচা সবুজ সাথী পত্রিকায় শিশু বিভাগে। সেই থেকেই লিটিল ম্যাগাজিনের সঙ্গে অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক যা পরবর্তীতে সপ্তপর্ণ পত্রিকা সম্পাদনা আর অভিজয় প্রকাশনীর প্রতিষ্ঠার সঙ্গে আরো দৃঢ় হয়েছে। আজ সপ্তপর্ণ ১১বছর অতিক্রম করে বাংলা লিটিল ম্যাগাজিনের জগতে পরিচিত নাম । এখন প্রত্যেক বছর অভিজয় সারা বাংলা জুড়ে জেলা ভিত্তিক স্তরে লিটিল ম্যাগাজিন সম্মান দিচ্ছে তাদের কাজের নিরিখে । বই: নদীর কাছে ওরা ক'জন (২০১৬) পকেট ফুল অফ জয় (২০১৭) পুরাবর্ত্ম (২০১৭) পুরস্কার: কচিকাঁচা সবুজ সাথী শিশু সাহিত্য সম্মান (১৯৯৬), সরলাবালা বিশ্বাস স্মৃতি সম্মান (১৯৯৯), চুনী কোটাল স্মৃতি সম্মান (২০১৮)

বিষাদ 

এখন হেমন্তের রেলিং জুড়ে বিষাদ সন্ধ্যা
এখন আকাশে কোন তারাই স্পষ্ট নয়
আমাদের দুচোখে অনুসন্ধানী সব তারা
আকাশ তোলপাড় করে ঘর খুঁজছে,
ঘরহীন এক আশ্রয়কাতরের চোখ এসে
চশমার মত এঁটে বসেছে নাকের দুপাশে …
মাথার ‘পরেতে বিস্তীর্ণ আকাশ, ছাদের অবর্তমানে
হাত বুলিয়ে বুলিয়ে কেবল মুখ মুছি
ধোঁয়া মাখা কুয়াশায় যে মুখ আবছা আর যার মুখ
চোখে ভাসে, ভুলি না কখনো… তাদের স্মরণ করে
রেলিঙেতে সুখ রাখি। থ্রিকোয়াটারের ঢিলেঢালা গীঁটে
অস্বস্তি মিশে গেলে কবিতা লিখি না আর-
ওসব আহাম্মকি করা চলে নাম-কুড়ানীদের
এখন হেমন্ত
আর রেলিঙের ধারে ধারে চুপচাপ গোপণ সংকেত
অবোধের চোখে তাই ঠুলি ঝোলে
সংকেত বুঝে নিতে বোধিসত্ত্ব একা একা পায়েস খেয়েছে।
আমরা এখনো খুঁজছি
বোধ না আশ্রয়!
সে সব গোপণ কথা বোধিসত্ত্ব জানেন আর
জানে তার আধখাওয়া অবশিষ্টের চরুপাত্রখানি।